নড়াইলে ৫৮২টি মণ্ডপঃ শারদীয় দুর্গা পূজাকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পীরা

0
117

নিজস্ব প্রতিবেদক

দিকে দিকে শরৎ এর কাশফুল জানান দিচ্ছে, আসছে শারদীয় উৎসব, আসছে দেবি দুর্গা। আর মাত্র কয়েকদিন বাকি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বৃহত্তম প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে নড়াইলে মৃৎশিল্পীদের কর্মব্যস্ততা বেড়েছে। সকাল থেকে গভীররাত পর্যন্তু প্রতিমা তৈরীর কাজে ব্যাস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পীরা। পূজা মন্ডপে দিনরাত চলছে শেষ মূহুর্তের প্রতিমা তৈরির কাজ। পূজা কমিটির কর্মকর্তারাও তাদের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

আগামী ০৩ অক্টোবর দেবীর বোধনের মধ্য দিয়ে শুরু হবে এ উৎসব। তাই শহর-গ্রামাঞ্চলের পূজা মন্ডপ গুলোতে চলছে প্রস্তুতিমূলক নানা কর্মকান্ড। আর এ সম্প্রদায়ের সব বয়সের লোকজন দিন গুনছেন আনন্দ উৎসবের।

দুর্গোৎসবে মণ্ডপের অন্যতম আকর্ষণ প্রতিমা। আর এ প্রতিমা তৈরির কাজে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পীরা। অধিকাংশ মন্ডপে চলছে দোমাটি ও রঙের কাজ। রাত-দিন কাজ করে চলেছেন শিল্পীরা, কারন ০৩ অক্টোবর পুজা শুরুর আগেই তাদের সব কাজ শেষ করতে হবে।এক একজন শিল্পী আকার ভেদে ৮/১২টি প্রতিমা তৈরির অর্ডার নিয়েছেন।

জেলা প্রশাসনের হিসাব মতে এ বছর জেলায় ৫৮২টি দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে। নড়াইল টাউন কালী বাড়ী, মিতালী সংঘ, বাধাঘাট, চরের ঘাট, রূপগঞ্জ বাজার কালীবাড়ী, সূর্যসেন ক্লাব, নিশিনাথ তলা, মহিষখোলা পূজা মন্দির, বরাশুলা পূজা মন্দির, শীতলাতলা মন্দির,সর্বমঙ্গলা কালী মন্দির, সর্দার পাড়া, ভাদুলীডাঙ্গা পূজা মন্দিরসহ জেলার প্রতিটি মন্ডবে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। ব্যাস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পী, ডেকরেশনের কর্মিসহ কমিটির কর্মকর্তা ও সদস্যরা।

প্রতিমা শিল্পী চিত্ত কুমার পাল জানালেন- তিনি এ বছর ১০টি প্রতিমা তৈরী করছেন, পূজা আসন্ন হওয়ায় রাত জেগে কাজ করতে হচ্ছে, সময় মত কাজ শেষ না করতে পারলে সমস্যায় পড়তে হবে। বাব-দাদার এ পেশা ধরে রেখেছি, মজুরি তেমন পাওয়া না গেলেও প্রতিমা তৈরীতে আলাদা আনন্দ পাই, তাই এ পেশা চালিয়ে যাচ্ছি।

জেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অশোক কুন্ডু জানান, নড়াইল সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জেলা, আশাকরি প্রতিবছরের মতো এবারও সুষ্ঠু, সুন্দর ও শান্তপূর্ণভাবে শারদীয় উৎসব সম্পন্ন হবে। পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএমভ(বার) জানালেন, পূজা শান্তিপূর্ন ভাবে সম্পন্ন করতে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যাপক নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি আশা করেন প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও সুষ্ট , সুন্দর ও শান্তি পূর্ন ভাবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গাপূজা সম্পন্ন হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here