নড়াইলে আ’লীগ বিএনপি সংঘর্ষে আহত ৮

0
370
নড়াইল

স্টাফ রিপোর্টার

নড়াইলে আবারও স্থানীয় আ’লীগ-বিএনপি কর্তৃক সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। এতে অশান্ত হয়ে পড়েছে কালিয়া উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রাম। সোমবার (২৩ডিসেম্বর) সকাল ৯টায় দিকে উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের আ’লীগ সমর্থিত গ্রুপের দলপতি বাবু মোল্যা নড়াইল সদর উপজেলার সীমান্তবর্তী সিঙ্গাশোলপুর বাজারে গেলে প্রতিপক্ষ বিএনপির সমর্থিত ইনা মেম্বার গ্রুপের লোকজন তাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এর জেরে সোমবার সকাল ১০টার দিকে দু’গ্রুপের সমর্থিত লোকজন রঘুনাথপুর বাজারে আবারও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে দু’গ্রুপের অন্তত ৮জন আহত হয়।এদেরকে নড়াইল ও খুলনা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গ্রামবাসির সূত্রে জানা যায়, কালিয়া উপজেলার পুরুলিয়া ইউপির রঘুনাথপুর গ্রাম ও বাজারের দলীয় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে তাদের দু’গ্রুপের মধ্যে বহুপূর্ব থেকে এ শত্রুতা চলে আসছে। ওই ইউনিয়ন আ’লীগের অন্যতম নেতা বাবু মোল্যা ওই গ্রামের আ’লীগ সমর্থিত গ্রুপের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। অপরদিকে ওই ইউপির ৮নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ইনা মেম্বার বিএনপির গ্রুপের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।আ’লীগ জখমীদের অভিযোগ, সিঙ্গাশোলপুর বাজারে সকালে আ’লীগ নেতা মো.বাবু মোল্যাকে একা পেয়ে বিএনপির এনা, সোহেল, হাসিব, রুবেল, জুয়েল, কবির ও জসিম হত্যার উদ্দেশে কুপিয়ে এবং পিটিয়ে গুরুতর জখম করে।

এর জেরে ওইদিন (সোমবার) সকাল ১০টায় আবারও দু’গ্রুপের সমর্থিত লোকজনের মধ্যে রঘুনাথপুর বাজারে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বেঁধে যায়। দু’টি উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় পৃথক দু’টি ঘটনায় আ’লীগ গ্রুপের দলপতি উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের বাবু মোল্যা (৩২),কিরামত মোল্যা (৫০), করিম মোল্যা(৩০), তছলিম(৩০), ইউছুপ মোল্যা (৬০)। বিএনপির গ্রুপের পাবেল মোল্যা (২৫), মিজা শেখ (৪৫) ও আরমান (২৫) আহত হয়।

স্থানীয়রা জানান, নড়াইল ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ আধিপত্য বিস্তার নিয়ে রঘুনাথপুর ও পার্শ্ববর্তী চাঁদপুর গ্রামে এ পর্যন্ত মোট ৫জন খুন হয়েছে। তারা হলেন,সাবেক সেনা সদস্য ও মেম্বার মোকাদ্দেস মোল্যা, ওই মামলার প্রধান স্বাক্ষী জান্নাত মোল্যা, মোসলেম মোল্যা, রানা ও কবির।

কালিয়া থানার ওসি মো.রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমার থানাধীন ঘটনাস্থল পুলিশ পরিদর্শন করেছে।কোনপক্ষই অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’ নড়াইল সদর থানার ওসি মো.ইলিয়াছ হোসেন বলেন, ‘সদর উপজেলার শিঙ্গাশোলপুরের সকালের ঘটনা শুনেছি। অভিযোগ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here