১০ ডিসেম্বর নড়াইল মুক্ত দিবস

0
107

স্টাফ রিপোর্টার

১০ ডিসেম্বর, নড়াইল মুক্ত দিবস। মিত্র বাহিনীর অংশগ্রহণ ছাড়াই নড়াইলের বীর মুক্তিযোদ্ধারা এই দিন নড়াইলকে সম্পূর্ণভাবে শত্রু মুক্ত করতে সক্ষম হন। সামগ্রীক মুক্তিযুদ্ধের বিশাল ক্যানভাসে নড়াইল দেশের একটি ক্ষুদ্র এলাকা হলেও মুক্তিযুদ্ধে নড়াইলের রয়েছে গৌরব উজ্জল ইতিহাস। শোষন বঞ্চনাহীন সুখি সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়ার মুক্তি সংগ্রামের সেই চেতনা সঠিক বাস্তবায়নের প্রত্যাশায় অজো দিন গুনছেন এখানকার সেইসব বীরসেনারা।

১৯৭১ সালের ৭ মার্চ ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে দশ লক্ষাধিক মানুষের বিশাল জনসভায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষনে স্বাধীনতার যে আহ্বান ছিল নড়াইলের মুক্তি পাগল জনতা তা থেকে পিছুুু পা হয় নাই। নড়াইল ছিল মুক্তিযুদ্ধে ৮নং সেক্টরের অধীন রণ কৌশলগত এলাকা। প্রথম দিকে ওসমান চৌধুরী এবং পরবর্তীতে মেজর মঞ্জুর নেতৃত্ব দেন এই সেক্টরের। ১৩ এপ্রিল যশোর অবস্থানের পরই হানাদাররা, তাদের এদেশীয় দোসর রাজাকার, আল-বদরদের সহায়তায় নড়াইলের নিরিহ জনগনের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে গণহত্যা শুরু করে।

এসময় তৎকালীন নড়াইল মুহাকমার অস্ত্রাগারের তালা ভেঙ্গে অস্ত্র সংগ্রহের মধ্য দিয়ে প্রতিরোধ সংগ্রামের সুচনা করে নড়াইলের মুক্তি পাগল জনতা। পরে তারা ভারত গিয়ে সামরিক প্রশিক্ষণ নিয়ে ফিরে হানাদারদের বিরুদ্ধে নিজেদের বিভিন্ন এলাকায় রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে অবতীর্ণ হন।

এর একপর্যায়ে প্রায় দুই শতাধিক খানসেনাসহ রাজাকার-আলবদরদের আত্মসমর্পনের মধ্য দিয়ে কালিয়া থানা মুক্ত হয় ২৪ নভেম্বর। লোহাগড়া মুক্ত হয় ৭ ডিসেম্বর। নড়াইল শহরের পাশ দিয়ে বয়ে চলা চিত্রা নদীর পূর্ব তীর থেকে ৯ ডিসেম্বর মুক্তি যোদ্ধাদের সম্মিলিত চুড়ান্ত- আক্রমণ পরিচালিত হয় নড়াইল শহর মুক্ত করতে। বর্তমান পানি উন্নয়ন বোর্ড কার্যালয়ে অবস্থিত নড়াইলে হানাদারদের সর্বশেষ ঘাটি দখলের মধ্যদিয়ে ১০ ডিসেম্বর সম্পূর্ণভাবে শত্রুমুক্ত হয় নড়াইল।

মুক্তিযুদ্ধে নড়াইলে ৫ জন খেতাব প্রাপ্ত হন তারা হলেন বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ, বীর উত্তম মুজিবুর রহমান, বীর বিক্রম আফজাল হোসেন, বীর প্রতীক খোরশেদ আলম, ও বীর প্রতীক মতিয়ার রহমান। ১৯৭১ সালে ১৪ ডিসেম্বর ৮নং সেক্টরের সেক্টরে মেজর মঞ্জুর নড়াইলে আসেন এবং মুক্তি পাগল হাজারো জনতার উপস্থিতিতে ডাকবাংলো প্রঙ্গনে আনুষ্টানিক ভাবে স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করা হয়। নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিনটি উদযাপন করছে নড়াইলের বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here