নড়াইলের চাঁচড়া নফেল উদ্দিন বিশ্বাস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত

0
7
নড়াইলের চাঁচড়া নফেল উদ্দিন বিশ্বাস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত
নড়াইলের চাঁচড়া নফেল উদ্দিন বিশ্বাস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার

নড়াইল সদর উপজেলার চাঁচড়া নফেল উদ্দিন বিশ্বাস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার মানোন্নয়নে অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৪ আগষ্ট) দুপুরে বিদ্যালয়ের নতুন ভবনের হলরুমে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পুন্ডুরিক কুমার বিশ্বাসের সভাপতিত্বে সভায় শিক্ষার মান্নোয়নে অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য তুলে ধরেন প্রধান অতিথি নড়াইল জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এসএম ছায়েদুর রহমান, বিশেষ অতিথি জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের সহকারী পরিদর্শক নাজমুল আলম, সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার সজল বিশ্বাস, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দেবাশিষ কুন্ডু মিটুল, চাঁচড়া নফেল উদ্দিন বিশ্বাস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি রাশেদুজ্জামান টিপু, ইউপি সদস্য টিটু বিশ্বাস, অভিভাবক সদস্য, মোঃ রাজীব জমাদ্দার। এছাড়া শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দেন বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারী শিক্ষক তপন কুমার বিশ্বাস, নিউটন অধিকারী, পবিত্র কুমার বিশ্বাস, মনজ বিশ্বাস, কানুরঞ্জন বিশ্বাস প্রমুখ ।

বক্তারা বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির যুগে মোবাইল ফোন আমাদের যেমন উপকার করে তেমনি কিছু ক্ষতির দিকও রয়েছে। সে কারনে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মতো এই বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মোবাইল ফোন ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কেউ স্কুলে মোবাইল ফোন নিয়ে আসলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। পাশাপাশি শিক্ষার মানোন্নয়নে শিক্ষককেদর আন্তরিকতার পাশাপাশি অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে। শিক্ষার্থীরা ঠিকমতো পড়াশোনা করছে কিনা, ঠিকমতো স্কুলে আসছে কিনা এসব বিষয় অভিভাবকদের খেয়াল রাখতে হবে।

বক্তারা আরো বলেন, সম্প্রতি নড়াইলের দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দুজন ছাত্র ফেসবুকে পোষ্টকে কেন্দ্র করে অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটেছে। সে কারনে শিক্ষার্থীরা বাড়িতে অবস্থানকালীণ সময়েও মোবাইল ফোন ব্যবহারে নিরুৎসাহিত করতে হবে। এসব ব্যাপারেও অভিভাবকদের আরো সতর্ক থাকতে হবে। সমাবেশে শিক্ষার্থীদের মা বাবা সহ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।