মহানবী (সা)কে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে কালিয়ায় বিক্ষোভঃ পুলিশ পেটালেন বিক্ষুব্ধ জনতা

0
35
মহানবী (সা)কে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে কালিয়ায় বিক্ষোভঃ পুলিশ পেটালেন বিক্ষুব্ধ জনতা
মহানবী (সা)কে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে কালিয়ায় বিক্ষোভঃ পুলিশ পেটালেন বিক্ষুব্ধ জনতা

স্টাফ রিপোর্টার

মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে ভারতে ক্ষমতাসীন বিজেপির দুই শীর্ষ নেতার কটূক্তির প্রতিবাদে সমাবেশ ও বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পুলিশের ওপর হামলা চালানো হয়। এ সময় পুলিশের দ্ইু কর্মকর্তাসহ তিনজন আহত হয়েছেন। সোমবার (১৩জুন) বিকালের দিকে কালিয়া উপজেলার নড়াগাতি থানার মাউলী ইউনিয়নের মহাজন বাজার এলাকায় এ সংঘর্ষ ঘটে।

এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে পুলিশ একজনকে আটক করেছে। মঙ্গলবার সকালে অজ্ঞাতনামা ২০০জনের বিরুদ্ধে নড়াগাতী থানায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা রুজু করে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার বিকাল সাড়ে পাঁচটার দিকে উপজেলার মহাজন বাজার থেকে বিক্ষোভ মিছিল করেছে স্থানীয় মাদ্রাসারাগুলোর শিক্ষার্থী,শিক্ষক,আলেম-উলামা ও সাধারণ জনতা। বিক্ষোভে উপস্থিত আমজনতা হযরত মোহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপির দুই শীর্ষ নেতা নুপুর শর্মা ও নবীন কুমার জান্দালের কটূক্তির আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ জানাতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। বিক্ষোভ মিছিলটি মহাজন বাজার এলাকার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে হরিসভা মন্দির সংলগ্ন সড়ক দিয়ে দক্ষিণ দিকে বিক্ষোভ করতে চাইলে পুলিশ বাঁধা দেয়। স্থানীয় একটি সূত্র বলছেন,এসময় এক পুলিশ কর্মকর্তা উসকানিমূলক কথা বললে তাদের ওপর হামলা চালিয়েছেন বিক্ষুব্ধ জনতা।

আবার অপর একটি সূত্র বলছে, উত্তেজিত জনতা সড়ক সংলগ্ন স্থানীয় এক প্রভাবশালী হিন্দু ভদ্র্রলোকের বাড়িতে হামলার আশঙ্কায় তাদের সেদিক দিয়ে যেতে বাঁধা দিলে এসময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধ জনতার লাঠি-সোঠার আঘাতে এসআই খাইরুল ইসলামের ডান হাতের বাহুতে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে লাঠির আঘাত, এএসআই অলিয়ার রহমানের মাথায় গুরুতর কাটা জখম ও পুলিশের সদস্য মো.সোহেল লাঠির আঘাতে রক্তাক্ত ভোলা জখম হন। আহতদের গুরুতর অবস্থায় কালিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

ঘটনার পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থল ও এর আশপাশ এলাকায় সাঁরাশি অভিযান চালিয়ে কালিয়া উপজেলার নড়াগাতী থানার মাউলী ইউনিয়নের চান্দেরচর গ্রামের আবুল বাসারের পুত্র তৌহিদুল ইসলামকে (২৬) আটক করে। অপরদিকে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানা গেছে।অপরদিকে মঙ্গলবার পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ২০০জনের বিরুদ্ধে নড়াগাতী থানায় একটি মামলা রুজু করে। নড়াগাতি থানার ওসি সুকান্ত কুমার সাহা বলেন, মামলা দায়ের হয়েছে। একজন আটক আছে। অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’