নড়াইলে রাজাকার চরিত্রে অভিনয় করায় নাট্যাভিনেতাকে চাপ দিয়ে বিবৃতি, থানায় জিডি

8
17
নড়াইলে রাজাকার চরিত্রে অভিনয় করায় নাট্যাভিনেতাকে চাপ দিয়ে বিবৃতি, থানায় জিডি
নড়াইলে রাজাকার চরিত্রে অভিনয় করায় নাট্যাভিনেতাকে চাপ দিয়ে বিবৃতি, থানায় জিডি

নড়াইল প্রতিনিধি

নড়াইলে ৭১-মুক্তিযুদ্ধে গ/ণহ/ত্যার ওপর নির্মিত নাটকে রাজাকার চরিত্রে অভিনয় করায় নাট্যাভিনেতাকে চাপ দিয়ে নাটকের বিরুদ্ধে বিবৃতি আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় নড়াইলের মুক্তিযোদ্ধা, জেলা শিল্পকলা একাডেমী, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, নড়াইলের মাঝ চরম ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। শুক্রবার (১৪জনিুয়ারী) মুক্তিযোদ্ধা, জেলা শিল্পকলা একাডেমী এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের নেতৃবৃন্দ জেলা প্রাশাসক ও জেলা শিল্পকলা একাডেমির সভাপতি মোঃ হাবিবুর রহমানের সাথে দেখা করে এ ঘটনার প্রতিবাদ এবং দোষীদেও বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা সাইফুর রহমান হিলু, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, নড়াইলের সভাপতি মলয় কুন্ডু, সাংস্কৃতিক জোটের সাধারন সম্পাদক শরফুল আলম লিট, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমাল লিটু, জোটের সহ-সভাপতি মাহবুব-ই-রসুল, শিল্পকলা একাডেমীর নির্বাহী কমিটির সদস্য শেখ হানিফ, নাটকের নির্দেশক শহিদুল্লাহ শাহীন প্রমুখ। এদিকে এ ঘটনায় নাট্যাভিনেতা কবি আবু বক্কার শুক্রবার সন্ধ্যায় সদর থানায় একটি জিডি করেছেন। সেখানে উল্লেখ্য করেছেন পারিবারিক, সামাজিক এবং কারো চাপে ও ভয়ে পড়ে এ বিবৃতি দিয়েছেন।

জানা গেছে, মুজিব শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে ৮ জানুয়ারী সন্ধ্যায় লোহাগড়ার ইতনা ইউনাইটেড ক্লাব মাঠে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে ৭১-মুক্তিযুদ্ধে নড়াইলের ইতনায় পাকিস্তানী বাহিনী কর্তৃক ৩৯জন সাধারণ মানুষকে হত্যা এবং ৯ মাসের মুক্তিযুদ্ধের ওপর নির্মিত ‘অনেক প্রাণের নামে কিনেছি’ নাটকের মঞ্চায়ন হয়। এ নাটকে নড়াইলের কুখ্যাত রাজাকার আওয়াল মন্ডলের চরিত্রে নড়াইলের কবি আবু বক্কার অভিনয় করেন। নাটক মঞ্চায়নের তিন পর ফেসবুক গ্রুপ নড়াইলের আলো পেজ থেকে একটি স্ট্যাটাস দেওয়া হয়“নড়াইলে সর্বজন শ্রদ্ধেয় আওয়াল মন্ডলকে নিয়ে বিতর্কিত নাটক করায় ভুল স্বীকার করলেন কবি আবু বক্কার”। ভিডিওতে দেখা যায়, তিনি বলেছেন, আওয়াল মন্ডল আমার দুলাইভাই ছিলেন। আমার জানামতে সে একজন সমাজসেবক ও খুব ভালো লোক ছিল। নড়াইলবাসী তাকে কে কি বললো সেটা তাদের ব্যাপার। আমি তার চরিত্রে অভিনয় করেছি। কিন্তু বুঝতে পারিনি। তাই এ বিষয়ে আমি লজ্জিত”।

এ ব্যাপারে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক শরফুল আলম লিটু বলেন, আমরা সম্মিলিত সাংস্কৃতি জোট এবং বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের পক্ষ থেকে এ ঘটনার নিন্দা, ক্ষোভ এবং নিন্দা জানাচ্ছি। যারা ৭১-এর গণহত্যা নিয়ে রচিত থিয়েটারকে বিতর্কিত বলেছে এবং বিবিৃতি দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহী মামলা হওয়া উচিত।

জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সদ্য বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, নড়াইলের সভাপতি মলয় কুন্ডু বলেন, রাজাকার আওয়াল মন্ডল চরিত্রে অভিয়নের পর নাটকের বিরুদ্ধে বিবৃতির সাথে যারা জড়িত এবং এ যারা এই নাটকটিকে বিতর্কিত বলেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে।
জেলা পরিষদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা সাইফুর রহমান হিলু নড়াইলে ৭১-এর গণহত্যা নিয়ে রচিত নাটককে যারা বিতর্কিত নাটক বলে মন্তব্য করেছে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক ও শিল্পকলা একাডেমীর সভাপতি মোঃ হাবিবুর রহমান বলেন, কবি আবু বক্কর বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর ব্যবস্থাপনায় ১৯৭১ সালের সত্য কাহিনী নিয়ে রচিত ‘অনেক প্রাণের দামে কিনেছি’ নাটকে জেনে-শুনে-বুঝে অভিনয় করেছেন। তিনি এর বিপক্ষে যে বিবৃতি দিয়েছেন সেটা সঠিক হয়নি,এটা অনভিপ্রেত। আবু বক্কার নতুন করে বিবৃতি দিয়েছেন, যা সেটা সাধারণ ডায়রী হিসেবে পরিণত হয়েছে। বিষয়টির তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।