কৃষকদের তে-ভাগা আন্দোলনের নেতা কমরেড হেমন্ত সরকারের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

0
20
কৃষকদের তে-ভাগা আন্দোলনের নেতা কমরেড হেমন্ত সরকারের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত
কৃষকদের তে-ভাগা আন্দোলনের নেতা কমরেড হেমন্ত সরকারের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

স্টাফ রিপোর্টার

কমিউনিস্ট ও কৃষকদের তে-ভাগা আন্দোলনের অন্যতম নেতা কমরেড হেমন্ত সরকারের ২১তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) বিকেলে তার সমাধিস্থল নড়াইল সদর উপজেলার মুলিয়া ইউনিয়নের বড়েন্দা গ্রামে বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়। এ উপলক্ষে গ্রামীণ মেলায় হরেক রকম মিষ্টি, শিশুদের খেলনা, নিত্য ব্যবহার্য জিনিসপত্র বেচাকেনাসহ বিভিন্ন পেশার মানুষের মিলন মেলায় মেলা প্রাঙ্গণ মুখরিত হয়ে উঠে।

বড়েন্দা গ্রামবাসীর আয়োজনে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির (মার্কসবাদী) সাধারণ সম্পাদক ইকবাল কবির জাহিদ, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য রুহিন হোসেন প্রিন্স, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অধ্যক্ষ আফসার আলী, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য রনজিত চট্টোপাধ্যায়, সিপিবি’র নড়াইল জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অঞ্জন রায়, ওয়ার্কার্স পার্টির (মার্কসবাদী) জেলা আহবায়ক মনিউর রহমান জিকু, বিপুল বিশ্বাস, সৌরভ গোলদার, পলাশ কুন্ডু, হেমন্ত সরকারের পরিবারের পক্ষ থেকে পলাশ সরকার প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন নির্মল গোলদার।

এদিকে, কমরেড হেমন্ত সরকার স্মৃতিরক্ষা কমিটির আয়োজনে শনিবার সকাল ১০টার দিকে বড়েন্দায় সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড ফজলে হোসেন বাদশা এমপি। রবীন্দ্রনাথ অধিকারীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য কমরেড আনিসুর রহমান মল্লিক, কমরেড মুস্তফা লুৎফুল্লা এমপি ও নড়াইল জেলা ওর্য়াকার্স পার্টির সভাপতি কমরেড নজরুল ইসলাম।

কমরেড হেমন্ত সরকার ১৯১৬ সালে নড়াইল সদর উপজেলার বড়েন্দার গ্রামে এক গরীব কৃষক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। দারিদ্রের কারণে তিনি প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার সুযোগ থেকে বঞ্চিত ছিলেন। প্রথম জীবনে তিনি নড়াইলের প্রতাপশালী জমিদারদের লাঠিয়াল হিসেবে কাজ করতেন। পরে উপমহাদেশের প্রখ্যাত কমিউনিস্ট নেতা কমরেড অমল সেনের সংস্পর্শে এসে মার্কসবাদের দীক্ষা নিয়ে কমিউনিস্ট আন্দোলনে নিজেকে উৎসর্গ করেন। হেমন্ত সরকার কৃষকদের তে-ভাগা আন্দোলনের অধিকার আদায়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। তার বেশির ভাগ সময় কেটেছে কারাগার ও আত্মগোপনের মধ্য দিয়ে। ১৯৯৮ সালের ২৮ ডিসেম্বর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বিপ্লবী এই নেতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here