নড়াইলে হযরত মোহাম্মদ (সাঃ)কে কঁটুক্তিকারী নূপুরের পক্ষে পোস্ট দেওয়ায় ছাত্র-জনতা-পুলিশ সংঘর্ষ

0
22
নড়াইলে হযরত মোহাম্মদ (সাঃ)কে কঁটুক্তিকারী নূপুরের পক্ষে পোস্ট দেওয়ায় ছাত্র-জনতা-পুলিশ সংঘর্ষ
নড়াইলে হযরত মোহাম্মদ (সাঃ)কে কঁটুক্তিকারী নূপুরের পক্ষে পোস্ট দেওয়ায় ছাত্র-জনতা-পুলিশ সংঘর্ষ

৩ শিক্ষকের মোটরসাইকেলে আগুন
অভিযুক্ত ছাত্র আটক
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশের টিয়ারগ্যাস

স্টাফ রিপোর্টার

মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর নামে ফেসবুকে কঁটুক্তিকারী ভারতের নূপুর শর্মার ছবি দিয়ে একটি পোস্ট দেওয়াকে কেন্দ্র করে নড়াইলে ছাত্র-জনতা-পুলিশ সংঘর্ষ হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় একজন কলেজ শিক্ষকসহ অন্তত ১০ জন ছাত্র ও স্থানীয় বাসিন্দা ও ২ পুলিশ সামান্য আহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় মির্জাপুর কলেজের অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাস, শিক্ষক প্রশান্ত কুমার রায় এবং অজিত কুমার বিশ্বাসের মোটরসাইকেল এলাকাবাসী পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। পরে নড়াইল থেকে জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ উর্ধতন পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে গিয়ে দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পুলিশ এ ঘটনায় অভিযুক্ত কলেজ ছাত্র রাহুল দেব অপিকে আটক করেছে। শনিবার (১৮ জুন) সদর উপজেলার মির্জাপুর আদর্শ কলেজ ক্যাম্পাসে এ ঘটনা ঘটে।

মির্জাপুর কলেজের প্রথম বর্ষের মানবিক বিভাগের ছাত্র জীবন শেখ জানান, একই বিভাগের ছাত্র রাহুল দেব অপি রাহুল দেব রায় ফেসবুকে নিজস্ব আইডিতে গত দু’দিন আগে নূপুর শর্মার ছবি দিয়ে মন্তব্য করেন, ‘প্রনাম নিও বস “নূপুর শর্মা” জয় শ্রী রাম’। এ পোস্টটি তাকে মুছে ফেলতে বললেও সে তা করেনি। শনিবার কলেজে এসে বিষয়টি প্রিন্সিপ্যাল স্যারকে জানালেও তিনি সন্তোষজনক কোনো ব্যবস্থা নিতে পারেনি। পরে স্থানীয় বিছালী পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ ও সদর থানা পুলিশ এসেও নিয়ন্ত্রনে আনতে পারেনি। ৪ থেকে ৫ শ ছাত্র ও এলাকাবাসী বিক্ষোবে যোগদান করে। এ সময় কলেজের গ্যারেজে থাকা ৩টি মোটরসাইকেল বিক্ষুব্ধ মানুষ আগুনে পুড়িয়ে দেয়।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর আদর্শ কলেজ পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও সদর উপজেলা আ’লীগ সভাপতি অচিন চক্রবর্ত্তী জানান, আমি জরুরি কাজে ঢাকায় রয়েছি। তবে কলেজের অধ্যক্ষ আমাকে বিষয়টি জানালে আমি জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে ফোন করলে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি নিয়ন্ত্রনে আনে।

মির্জাপুর কলেজের অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে এ ব্যাপারে ফোন করলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি শওকত কবীর বলেন, এ ঘটনা নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় ইটপাটকেল নিক্ষেপে পুলিশের দুজনের হাত সামান্য কেটে গেছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

নড়াইলের পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায় বলেন, ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়া যুবককে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে ওই এলাকার পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে আছে।

নড়াইলের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান বলেন, নড়াইল-১ আসনের এমপি মহোদয় রোববার মীর্জাপুর এলাকায় এসে এ বিষয় নিয়ে এলাকাবাসির সাথে কথা বলবেন বলে জানিয়েছেন। ওই এলাকায় যেন আর কোন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।