নড়াইলে শিক্ষক হেনস্থাঃ অবশেষে মির্জাপুর কলেজের অধ্যক্ষ বুধবার কলেজে যাচ্ছেন

0
18
মহানবী (সাঃ) কে কটুক্তির সমর্থনঃ নড়াইলে ছাত্রের ফেসবুকে পোস্ট দেয়া সেই ছাত্রের রিমান্ড না মঞ্জুর

স্টাফ রিপোর্টার

অবশেষে সদরের মির্জাপুর ইউনাইটেড কলেজের অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাস বুধবার (৩ আগস্ট) কলেজে যাচ্ছেন। একই দিন কলেজে যাবেন নড়াইল-১ আসনের এমপি কমিবরুল হক মুক্তি, জাতীয় বিশ^বিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ, মনিটরিং কমিটির চেয়ারম্যানসহ ৩জন এবং জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ। কলেজের শিক্ষক ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে তাকে ফুলের মালা দিয়ে বরণ করে নেওয়া হবে। এসব তথ্য জানিয়েছেন মির্জাপুর কলেজ পরিচালনা পরিষদের সভাপতি অ্যাডঃ অচিন চক্রবর্ত্তী।

মির্জাপুর কলেজের এক ছাত্র ফেসবুকে ভারতের বিজেপির বহিস্কৃত নেত্রী মহানবী (সাঃ)কে কটুক্তিকারী নূপুর শর্মাকে প্রনাম জানিয়ে মির্জাপুর কলেজের এক ছাত্রের পোস্ট দেয়ার ঘটনায় কলেজ ক্যাম্পাসে ১৮জুন এক সহিংস ঘটনার পর কলেজের অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে পুলিশের সামনে জুতার মালা পরিয়ে কলেজ থেকে বের করে দেওয়া হয়। এরপর দীর্ঘ ৩৬দিন কলেজ বন্ধ থাকার পর গত ২৪ জুলাই কলেজ খুললেও অধ্যক্ষ কলেজে যাননি। এমনকি অধ্যক্ষ পার্শ্ববর্তী গ্রাম বড়কুলার নিজ বাড়িতেও ফেরেননি। তিনি নড়াইল শহর অথবা শহরতলিতে কোনো আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে রয়েছেন। অধ্যক্ষের বাড়িতে তাঁর মা বনলতা বিশ্বাস-বাবা সুমন্ত বিশ্বাস, স্ত্রী ও স্কুল ও কলেজ পড়–য়া ৩ কন্যা রয়েছেন।

অধ্যক্ষ হেনস্থা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও সদর থানার ওসি (চলতি দায়িত্বে) মো. মাহামুদুর রহমান জানান,এ পর্যন্ত মোট ৯জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরা সবাই হাজতে। এর মধ্যে মির্জাপুর কলেজেরই ছাত্রই রয়েছেন ৪জন। এসব ছাত্ররা হলো মির্জাপুর গ্রামের মেজবাউর রহমানের পূত্র সাব্বির রহমান, আফজাল শেখের পূত্র রিপন শেখ রিপু, রহমান শেখের পূত্র রায়হান শেখ ও চুনখোলা গ্রামের আফসারুল কাজীর পূত্র জহিরুল কাজী। এদিকে অভিযুক্ত পোস্টকারী কলেজ ছাত্র রাহুল এখন হাজতে।