তাবলিগ জামাতের বিক্ষোভে বিমানবন্দর এলাকায় তীব্র যানজট

0
11

ডেস্ক রিপোর্ট

গাজীপুরের টঙ্গীতে তাবলিগ জামাতের বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিতে দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজের জিম্মাদার তাবলিগ জামাতের কেন্দ্রীয় শুরা সদস্য মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্ধলভির বাংলাদেশে আগমন ঘিরে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকায় বিক্ষোভ হয়েছে।

বুধবার (১০ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে তিনি তাবলিগের কাকরাইল শুরা কার্যালয়ে যান। বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) ও কাস্টমসের কয়েকজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে থাই এয়ারওয়েজের ফ্লাইটে বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর আনুষ্ঠানিকতা সেরে বিকেল পৌনে ৩টার দিকে গাড়িযোগে কাকরাইলের উদ্দেশে বেরিয়ে যান মাওলানা সাদ।

বুধবার দুপুর ১২টার দিকে বিমানবন্দরের সামনের সড়ক অবরোধর করে তাবলিগ জামায়াতের কর্মীরা বিক্ষোভ শুরু করেন। আশপাশের এলাকা থেকে খণ্ডখণ্ড মিছিল এসে বিমানবন্দর চত্ত্বরে জড় হয়। সমাবেশ ঘিরে রাখে পুলিশ। পুরো এলাকায় দেখা দেয় তীব্র যানজট।

সেখানে সমাবেশে বক্তব্য দেন বাবুচ্ছালাম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আনিছুর রহমান। তিনি বলেন, মাওলানা মোহাম্মদ সাদ তাবলিগ বিরোধী। তাকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেওয়া যাবে না। পরে বিকেল সোয়া ৫টার দিকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের হস্তক্ষেপে বিক্ষোভকারীরা সেখান থেকে সরে যান। এরপর ওই এলাকায় যান চলাচল স্বাভাবিক হতে শুরু করে।

দুপুরের দিকে বিমানবন্দর থানার ওসি নূর এ আজম জানান, মাওলানা সাদের ঢাকা পৌঁছানোর কথা ছিল বুধবার দুপুরের পর। তার আসার প্রতিবাদে তাবলিগ জামাতের একটি অংশ সকাল ৯টার পর থেকেই বিমানবন্দর এলাকায় অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। এরা হেফাজতের লোকজনও হতে পারে। মাওলানা সাদের আসা নিয়ে তাবলিগ জামাতে দুটি গ্রুপ হয়েছে। একটি গ্রুপ তার আসার বিরোধিতা করছে। আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছি।

বিশ্বজুড়ে তাবলিগ জামাতের মারকাজ হিসেবে পরিচিত দিল্লির নিজামুদ্দিন। ওই মারকাজের প্রধান মুরুব্বিদের একজন মওলানা সাদ। তার কিছু বক্তব্যে বছরজুড়েই কওমিপন্থিরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। একই সঙ্গে বাংলাদেশে তাবলিগে ফয়সালের মধ্যে মওলানা মুহম্মদ জুবায়ের, মওলানা রবিউল হক, মওলানা ওমর ফারুক মওলানা সাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here